সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ের জন্য বেশ কিছু দরকারী ব্রাউজার এক্সটেনশন

  • by
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটার হিসেবে, আমি সব সময় অল্প সময়ে কিভাবে বেশী কাজ করা যায়, সেই চেষ্টাই করেছি। একজন মার্কেটারের কাছে, সাধারণ প্রশ্ন থাকতে পারে যে, “আমি কীভাবে সবচেয়ে কম সময় বিনিয়োগ করে সর্বোচ্চ ফলাফল পেতে পারি?” আর তাঁর সহজ উত্তর হচ্ছে, দক্ষতা ও আধুনিক বিভিন্ন টুলসমূহের ব্যবহার করা।

সম্প্রতি, আমি ছয়টি ব্রাউজার এক্সটেনশন বের করেছি, যা একজন ব্যস্ত সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটার ও তাঁর টার্গেটড নেটওয়ার্ককে বাড়ানোর কাজ আরও সহজতর করতে পারে।

এই নিবন্ধে, আমি একজন ব্যস্ত সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারকে সহায়তা করতে পারে এমন ছয়টি ব্রাউজার এক্সটেনশন শেয়ার করবো।

#১। ওয়ানট্যাব ব্যবহার করে আপনার ব্রাউজারের অতিরিক্ত ট্যাব দূর করতে পারেন

অনেক সামাজিক বিপণনকারীরা একটি সাধারণ ভুল করে থাকেন যে, তারা একটি ব্রাউজারে অনেক বেশি ট্যাব খুলে রাখেন। এই সবগুলো ট্যাব একত্রে মেইন্টেইন করা বেশ কস্টের, তবে আপনি হয়তোবা এগুলো একেবারে বন্ধও করে দিতে চান না। ওয়ান ট্যাব ব্যবহার করে মাত্র একটি ট্যাব খোলা রেখে বাকি ট্যাবগুলো একটি ট্যাবের নিচে লিস্ট আকারে নিয়ে আসতে পারেন। পরে আপনি এখান থেকে পছন্দমতো ট্যাব বাছাই করে নিতে পারবেন, সাজিয়ে নিতে পারবেন অথবা একটি একটি করে খুলতে পারবেন যা এই মুহূর্তে দরকার হচ্ছে।

#২। ওয়েব পেইজের আর্টিকেল সেভ করতে এভারনোট ওয়েব ক্লিপার

আপনি যে ধরণের বিপণনকারী হোন না কেন, এভারনোট ওয়েব ক্লিপার আপনার ওয়েব গবেষণা করার কাজ আরো সহজ এবং যেকোনো নোট নেয়া আরো সহজতর করে তুলতে পারে। এটা এভারনোট টিমের তৈরি করা একটি ফ্রি টুল। যা দিয়ে আপনি যেকোনো ওয়েবপেইজ ক্লিপ করে তা আর্টিকেল বা প্লেইন টেক্সট হিসেবে সংরক্ষন করতে পারবেন। এছাড়াও পুরো এরিয়া বা নির্বাচিত অংশের স্ক্রিনশট নিতে, নোট লিখতে বা তীর চিহ্ন দিয়ে মার্কও করতে পারবেন। ক্লিপ তৈরি করার পর আপনি এতে মন্তব্য বা ট্যাগ যুক্ত করে তা আপনার এভারনোট একাউন্টের ফোল্ডারে রেখে দিতে পারেন।

এরপর চাইলে আপনি এই আর্টিকেল ফেসবুক, টুইটার বা অন্য যেকোনো সোশ্যাল চ্যানেলে শেয়ার করতে পারেন।

#৩। গ্রামারলি দিয়ে ব্রাউজারেই আপনার কনটেন্ট সম্পাদনা করুন

একজন অনলাইন মার্কেটার হিসাবে, যেকোনো লেখা প্রুফরীড করার জন্য খুব অল্প সময় পাওয়া যায়। গ্রামারলি একটি ফ্রি, শক্তিশালী এবং সহজেই ব্যবহারযোগ্য পরিষেবা যা ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদির মতো কোনও ব্রাউজার প্ল্যাটফর্মে লেখার সাথে সাথে আপনার লেখাকে সম্পাদনা করে দিবে। এই সফটওয়্যারের দুটি সংস্করণ পাওয়া যায়, একটি বিনামূল্যে এবং অন্যটিতে অর্থ প্রদান করতে হয়। বিনামূল্যের সংস্করণ আপনার লেখার ব্যাকরণ ত্রুটি, বানান, বিরামচিহ্ন এবং সাধারণ বানানের ভুল যা আপনার লেখার সময় ঘটে তা পরীক্ষা করবে। আপনি কোনও ব্রাউজার বা অন্যান্য প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে সামাজিক মাধ্যমের জন্য পোস্ট তৈরি করার পাশাপাশি আপনার ডকুমেন্টটি সম্পাদনা করতে গ্রামারলি ওয়েবসাইট বা এর সাধারণ ব্রাউজার এক্সটেনশনটি ব্যবহার করতে পারেন।

আপনার কপিটি যদি পরিচ্ছন্ন হয়, তবে অ্যাপ্লিকেশন আইকনটি সবুজ থাকবে। অন্যথায়, কয়টি ভুল হয়েছে সেই সংখ্যাসহ লাল হয়ে যাবে। কপিটি সংশোধন করার জন্য আপনাকে লাল আইকনে ক্লিক করতে হবে এবং প্রস্তাবিত ফাইলটি সম্পাদনা করতে হবে।

#৪ গ্রামারলি ব্রাউজার এক্সটেনশন

পেইড সংস্করণে কিছু অতিরিক্ত বৈশিষ্ট্য যুক্ত করা হয়েছে যেমন লেখার স্টাইল এবং বাক্য গঠনের পরামর্শ, শব্দভাণ্ডার বর্ধনের টিপস এবং সর্বজনীন লেখা চুরি শনাক্তকরণ পরিষেবা। এছাড়াও আপনার লেখা প্রুফরীড করতে পেশাদার ম্যানুয়াল প্রুফরিডারের কাছে লেখা জমা দিতে পারেন।

যখন “জি” আইকন সবুজ থাকে, তার অর্থ অনুলিপিটি পরিচ্ছন্ন এবং নির্ভুল। যদি ত্রুটির পরামর্শসহ লাল হয়ে যায়, তাহলে আপনাকে এর উপর আরো কাজ করার প্রয়োজন হতে পারে।

#৪ সোশ্যাল পোস্টের জন্য হুটলেট

হুটস্যুট একটি দরকারী সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট টুল। আপনি ব্রাউজার থেকে সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট তৈরি করতে এবং শিডিয়ুল করতে তাঁদের অফিশিয়াল ব্রাউজার এক্সটেনশন হুটলেট ব্যবহার করতে পারেন। কোনও ওয়েবসাইটের রচনা শেয়ার করতে চাইলে তাতে ব্রাউজ করুন এবং তা শেয়ার করার জন্য হুটলেট আইকনটিতে ক্লিক করুন।

এরপর আপনি আপনার পছন্দসই সামাজিক মিডিয়া অ্যাকাউন্টটি চয়ন করে আপনি এটি তাৎক্ষণিক পোস্ট করতে, পোস্ট সম্পাদনা করতে বা পরবর্তী কোনও সময়ের জন্য শিডিউল করে রাখতে পারেন। হুটলেট আইকনে ক্লিক করলে আপনাকে বর্তমানে কর্ম প্রবাহটি না বাদ দিয়েই আপনার পোস্টটি শিডিউল এবং প্রকাশ করতে পারবেন।

#৫ রাইটট্যাগ দিয়ে উপযুক্ত হ্যাশট্যাগগুলো সন্ধান করুন

প্রাসঙ্গিক এবং ট্রেন্ডিং হ্যাশট্যাগগুলো নিয়ে গবেষণা করার জন্য রাইটট্যাগ একটি দুর্দান্ত টুল। বিনামূল্যের সংস্করণ অ্যাক্সেস করতে আপনাকে রাইটট্যাগের ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করতে হবে। সার্চবাক্সে আপনার কীওয়ার্ড বা বিষয় লিখুন।

রাইটট্যাগে হ্যাশট্যাগগুলোর অনুসন্ধান করে কোনও বিষয়ে ট্রেন্ডিং ট্যাগ খুঁজে বের করা এবং কোন ট্যাগ এড়াতে হবে তার ইনসাইট পাওয়া যায়।

আপনি পেইড ব্রাউজার এক্সটেনশনে অ্যাক্সেস পেতে পারেন (প্রতি মাসে $১১ থেকে শুরু করে)। এটি আপনাকে যে টপিকটি লিখছেন সে সম্পর্কিত হ্যাশট্যাগসহ আপনার সামাজিক মিডিয়া পোস্টগুলোকে আরো উন্নত করার সুযোগ প্রদান করে।

#৬। রকেট বোল্ট দিয়ে কয়টা ইমেইল খোলা হয়েছে তা ট্র্যাক করুন

রকেটবোল্ট অন্যান্য এক্সটেনশনগুলো থেকে কিছুটা আলাদাভাবে কাজ করে। আপনি যখন এটাতে ক্লিক করেন, তখন এক্সটেনশন নিজে কিছুই করবে না, তবে এর কার্যকারিতা আনলক করার জন্য আপনাকে এটি আপনার ইমেইলে ইনস্টল করতে হবে। যখন Gmail এর সাথে একত্রে ব্যবহৃত হবে, তখন রকেটবোল্ট কোনও ইমেইল খোলা এবং ক্লিক-থ্রু-রেট ট্র্যাক করতে পারে।

মেলচিম্প এবং এমার মতো প্রোগ্রাম ইমেল মার্কেটাররা ব্যবহার করে থাকেন। তবে, এগুলো ব্যবহার করে কে ইমেইল খুললো আর কে খুললো না তা বের করা যায় না।এই কারনেই আপনি যদি দেখতে চান, আপনার ইমেলটি কে পড়েছে, তাহলে অবশ্যই এটা ব্যবহার করুন।

পরিশিষ্ট

এই এক্সটেনশনগুলো নিজেরা এককভাবেই শক্তিশালী টুল; তবে, একটি প্রো ট্রিক হলো এগুলো সব একত্রে ইনস্টল করা এবং একত্রে ব্যবহার শুরু করা আপনার কাজের দক্ষতা বাড়াবে। উদাহরণস্বরূপ, আপনার ট্যাবগুলোকে ওয়ান ট্যাবে সংগ্রহ করুন এবং এভারনোট ওয়েব ক্লিপারের সাথে টীকা সহ একটি একক পৃষ্ঠায় জমা করুন।

এই ব্রাউজার এক্সটেনশনগুলো আপনার কাছে কেমন মনে হয়? আপনি কি এই ওয়েব ব্রাউজারের কোনও এক্সটেনশন কখনো ব্যবহার করেছেন? এই টুলগুলো ব্যবহার করে আপনি কী কী সুবিধা পেয়েছেন? নীচের মতামতে আমাদেরকে জানাতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.